অডিও এডিটিং এর জন্য ৫টি সেরা সফটওয়্যার!

আপনি কি নতুন নতুন সংগীত শিল্পী? বা সংগীত বা মিউজিক তথা সাউন্ড নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন। অনলাইন থেকে ডাউনলোড দেয়া অথবা কোথাও থেকে তুলে আনা গানগুলো এডিটিং করতে চাচ্ছেন।  ডাবিং ভিডিও বানানোর জন্য আপনার সাউন্ড রেকর্ডিং এবং সাউন্ড এডিটিং এর জন্য সফটওয়্যার খুজছেন?

কোথাও যাবে না এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য।  আজ আমরা কথা বলব কতগুলো ফ্রী ডিজিটাল অডিও এডিটিং সফটওয়্যার নিয়ে, যার মাধ্যমে আপনি হ্যান্ডেল করতে পারবেন আপনার রেকর্ডিং,আপনার গান বানাতে পারবেন তথা সাউন্ড সম্পর্কিত কাজ করতে পারবেন।

অনলাইনে অনুসন্ধান করে এখানে আমি ১৫ টি ডিজিটাল অডিও এডিটিং সফটওয়্যার গুলোকে সাজিয়েছি। যেগুলো নতুন এবং পুরাতন দুই ধরনের ব্যবহারকারী দেরই কাজে দিবে। বেশির ভাগ সফটওয়্যারই ব্যবহার করতে খুবই সহজ এবং বেশ দারুন দারুন ফিচার ব্যবহারকারীদের দিয়ে থাকে। ডাউনলোড করার জন্য যে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন লিখে Download for লিখে কোন অপারেটিং সিস্টেম লিখে গুগলে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন।

Audacity

এটি এই ক্ষেত্রে সবচাইতে পপুলার এবং কাজের একটি অডিও এডিটিং সফটওয়্যার। একটি মিউজিক প্রোডাকশন এর জন্য যা যা দরকার অডাসিটি সফটওয়্যার টিতে তার সবই পাওয়া যাবে।  এখানে আপনি একই ইন্টারফেসে সাউন্ড রেকর্ড,এডিট এবং মিউজিক তৈরি করতে পারবেন।  রেকর্ডিং এর সময় অডিও এর প্রতিটি জায়গা আপনি ম্যানুপুলেট করতে পারবেন আপনার ইচ্ছা মত। আপনার মিউজিক প্রাঞ্জলতা দেয়ার জন্য এখনে পাবেন শতাধিক সাউন্ড ইফেক্ট। সফটওয়্যার লিনাক্স,ম্যাক ও উইন্ডোজ প্লাটফর্ম এর জন্য উন্মুক্ত।

[button href=”http://www.audacityteam.org/download/” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

Apple GarageBand

কিছু বছর আগে অ্যাপল ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য ফ্রি এবং আইওএস ইউজারদের জন্য ৪.৯৯$ ডলারে এডভান্সড মিউজিক ইন্সট্রুমেন্ট ও সাউন্ড অ্যাপলিকেশন বের করে। ফ্রী ভার্সনটিতে রয়েছে শতাধিক সাউন্ড ইফেক্ট এবং গিটার, ড্রাম,কীবোর্ড এর মতন বেশ কতগুলো ইন্সট্রুমেন্ট। এখানে আপনি সাউন্ড রেকর্ডও করতে পারবেন। এটি কেবল ম্যাক এবং আইফোন,আইপ্যাড ইউজারদের জন্য উন্মুক্ত।

[button href=”https://www.apple.com/mac/garageband/” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

Darkwave Studio

প্যাটার্ন এবং সিকুয়েন্স ট্র্যাক এডিট করার জন্য ডেডিকেটেড সেকশন সহকারে এই সফটওয়্যারটি খুবই সহজ একটি মিউজিক এডিটিং সফটওয়্যার। ডিফল্টভাবেই এটি সাউন্ড কার্ড ইনপুট এর সাথে আসে,এখানে আরও পাবেন ডজনের মত ইন্সট্রুমেন্ট,স্টেরিও মিক্সার, বেজ হেড,ডিসটরশন,স্টেরিও জয়েনার ইত্যাদি।এটি কেবল উইন্ডোজ প্লাটফর্ম এর জন্য উন্মুক্ত।

[button href=”[button href=”https://darkwave-studio.en.uptodown.com/windows” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

Soundation

এটি একটি ওয়েব ভিত্তিক মিউজিক ক্রিয়েশন টুল। এখানে আপনি মিউজিক তৈরি করতে পারবেন ৭০০ এরও বেশি ইফেক্ট এবং লুপ ব্যবহার করে। তাছাড়াও ডজনের মতন ভার্চুয়াল ইন্সট্রুমেন্ট তো পাবেনই। আর কতগুলো গান আপনি বানাবেন তার কোন লিমিট নেই। কেবল সাউন্ড রেকর্ডিং এর জন্য আপনাকে পেইড ভার্সন ব্যবহার করতে হবে।

[button href=”[button href=”https://soundation.com/” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

Lmms

এটি এটি ওপেন সোর্স সফটওয়্যার যেখানে আপনি পারবেন কম্পোজ করতে,এডিট করতে,মিক্স এবং রেকর্ড করতে।প্রথম প্রথম এর ইন্টারফেস আপনার কাছে কঠিন লাগতে পারে,তবে এটু মনোযোগ দিলে সহজ হয়ে যাবে। এখানে প্রায় শতাধিক সাউন্ড ইফেক্ট খুজে পাবেন ফ্রী। এটি লিনাক্স,ম্যাক এবং উইন্ডোজ প্লাটফর্ম এর জন্য উন্মুক্ত।

[button href=”[button href=”https://lmms.io/download/#windows” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

….Extra

Virtual DJ

যারা একটু ডিজে বা ডিসকো জকি টাইপের কিছু করতে চান তাদের জন্য এই সফটওয়্যার। এটি মূলত সাউন্ড এবং ট্র্যাক মিক্স করার দিকে বেশি নজর দেয়, যেনো নতুন এপিক কোনো সাউন্ড সৃষ্টি করা যায়। এটা দুটি ট্র্যাক মিক্স করতে সক্ষম, লুপ ম্যানেজ করতে সক্ষম,ক্রসফেড, ইফেক্ট ইত্যাদি এড করতে সক্ষম। এই সফটওয়্যারটি উইন্ডোজ এবং ম্যাক প্লাটফর্ম এর জন্য এভেইলেবল।

[button href=”[button href=”https://www.virtualdj.com/” type=”btn-primary” size=”btn-sm”]ডাউনলোড [/button]

আশা করি সাউন্ড তথা অডিও এডিটিং সম্পর্কিত এই আর্টিকেলটি আপনাদের বেশ কাজে দিবে।  ধন্যবাদ