Primo RX8 : ৩২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট, রিয়ারে কোয়াড ক্যামেরা, ৪ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি স্টোরেজ

নিত্যনতুন স্মার্টফোন আনার জন্য আমাদের দেশীয় মার্কেটে অনেক জনপ্রিয় একটি নাম ওয়ালটন। ওয়ালটন বলতে গেলে প্রতিমাসেই দেশের বাজেট গ্রাহকদের জন্য নানান ফিচার এবং মডেলের স্মার্টফোন নিয়ে আসে। সম্প্রতি ওয়ালটন তাদের আরএক্স সিরিজের অধীনে নতুন একটি স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে, আর সেটি হচ্ছে প্রিমো আরএক্স৮।

ওয়ালটনের আরএক্স সিরিজ বরাবরই অনেক ফিচারফুল স্মার্টফোনের জন্য বাজারে জনপ্রিয়। শেষবার আরএক্স সিরিজের বাজার কাঁপানো স্মার্টফোন ছিল প্রিমো আরএক্স৭ মিনি। আরএক্স৭ মিনির পরে প্রায় বছরখানেক বিরতি দিয়ে আরএক্স সিরিজে এই নতুন স্মার্টফোন প্রিমো আরএক্স ৮ লঞ্চ হল। এই আর্টিকেলে আমরা আরএক্স৮ স্মার্টফোনটি নিয়ে আলোচনা করব।

একনজরে প্রিমো আরএক্স৮ স্মার্টফোন

  • এন্ড্রয়েড ভার্সন ১০
  • ১২ ন্যানোমিটার ফিনটেক প্রযুক্তির ২ গিগাহার্জ অক্টাকোর প্রসেসর (হেলিও পি২২)
  • ৪ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি রম/ ইন্টার্নাল স্টোরেজ
  • ২৫৬ জিবি পর্যন্ত এক্সট্রা মেমরি কার্ড সাপোর্ট
  • পাঞ্চ-হোল ক্যামেরা বিশিষ্ট ৬.৫৫ ইঞ্চি LTPS ডিসপ্লে প্যানেল
  • ১৬+২+৮+৫ মেগাপিক্সেল সেন্সর নিয়ে কোয়াড ক্যামেরা সেটাপ
  • ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা
  • ৪০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি
  • ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট

ডিসপ্লে এবং গর্জিয়াস ডিজাইন

আরএক্স সিরিজের স্মার্টফোন মানেই প্রিমিয়ামনেস! আরএক্স৮ এর আগেও আরএক্স৭ মিনি স্মার্টফোনটির ডিজাইন ছিল যথেষ্ট প্রিমিয়াম। আরএক্স৭ মিনির মত নতুন এই আরএক্স৮ ডিভাইসটিও সম্পূর্ণ গ্লাস বডিতে তৈরি, যাকে ওয়ালটন বলছে গ্লাসব্যাক স্যান্ডউইচড ডিজাইন।

আরএক্স৮ এর রিয়ার প্যানেলের কোয়াড ক্যামেরার সাথে একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর মিলে মেইন রিয়ার বাম্প, স্মার্টফোনটিকে দিয়েছে একটি গর্জিয়াস লুক! রিয়ার প্যানেলে এর ক্যামেরা বাম্পের নিচেই দেখা মিলবে রাউন্ডেড কর্নার বক্স বর্ডারের ভেতর ওয়ালটনের ব্র্যান্ডিং, যা ওয়ালটনের আগের সকল স্মার্টফোনের ব্র্যান্ডিং থেকে আরএক্স৮ কে ইউনিক করেছে।

গ্লাসবডির হলেও স্মার্টফোনটি স্ক্র্যাচ রেজিস্ট্যান্ট। ফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে বাম পাশে উপরে দেখা মিলবে একটি পাঞ্চ-হোল সেলফি ক্যামেরা। আরএক্স৮ স্মার্টফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে দুইটি কালারে; একটি হচ্ছে অল্ভিও গ্রীন এবং আরেকটি হচ্ছে অক্সফোর্ড ব্ল্যাক।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে লো-টেম্পারেচার পলি-সিলিকন তথা এলটিপিএস ডিসপ্লে প্যানেল। সাধারন আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে এর চাইতে এই এলটিপিএস ডিসপ্লের একক ক্রিস্টাল ইলেকট্রন গুলোর মুভমেন্ট অনেক বেশি ফাস্ট! যার দরুন এলটিপিএস ডিসপ্লেতে রেজুলেসন এবং ভিউইং এঙ্গেল দুটোই পাওয়া যায় বেশি। আর ডিসপ্লে সিলিকন ক্রিস্টালগুলোর মুভমেন্ট তুলনামুলক ফাস্ট হবার কারনে এসব ডিসপ্লেতে রিফ্রেশ রেট’ও পাওয়া যায় অনেক বেশি।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৬.৫৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে, যার এস্পেক্ট রেসিও ২০ঃ৯। স্মার্টফোনটির ডিসপ্লের রেজুলেশন ১৬০০*৭২০ পিক্সেল। এলটিপিএস ডিসপ্লে হবার কারনে এটি অন্যান্য সাধারন আইপিএস ডিসপ্লেএর চাইতে ২০ শতাংশ বেশি ব্যাটারি সাশ্রয়ী!

অনবদ্য ক্যামেরায় বাজিমাত!

স্মার্টফোনটির অন্যতম চমক হচ্ছে এর ক্যামেরা সেকশনে। আরএক্স৮ এর রিয়ার প্যানেলে দেখা মিলবে কোয়াড তথা ৪ টি ক্যামেরা বিশিষ্ট একটি শক্তিশালী সেটাপ। স্মার্টফোনটির মেইন শুটার হচ্ছে একটি ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর, ওয়াইড এঙ্গেলের থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল সেন্সর; ফোনটি দিয়ে ম্যাক্রো ফটোগ্রাফি সম্ভব করার জন্য এই সেটাপে থাকছে একটি ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর আর পরিশেষে ডেপ্থ সেন্সিং এর জন্য ২ মেগাপিক্সেল সেন্সর তো থাকছেই! সব মিলিয়ে ক্যামেরা নিয়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করার জন্য ওয়ালটন আরএক্স৮ প্রস্তুত করেছে। ফোনটির মেইন ১৬ মেগাপিক্সেল সেন্সরের এপার্চার হচ্ছে এফ২.০। ৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল সেন্সর থাকার ফলে, খুব অনায়াসে স্মার্টফোনটি ব্যবহার করে দারুন সব প্যানারমিক শট নিতে পারবেন, আর যাদের ম্যাক্রো ফটোগ্রাফি পছন্দের তাদের জন্যেও প্লাস পয়েন্ট হিসেবে ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর থাকছে।

ওয়ালটন দ্বিতীয় চমক এনেছে স্মার্ট ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরায়; আরএক্স৮ স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে দেখা মিলবে একটি ৩২ মেগাপিক্সেল সেন্সর। ফ্রন্টে ছোট্ট কিউট একটি পাঞ্চ হোলের ভেতর এই ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সরের অবস্থান। সর্বোপরি, ভ্লগার কিংবা সেলফি লাভারদের জন্য এই ফ্রন্ট ক্যামেরা দারুন কাজে দিবে। আর ৩২ মেগাপিক্সেল সেন্সর থাকার ফলে স্মার্টফোনটির ফেস আইডি সিকিউরিটি সুবিধাটি বেশ ভালই কাজে দিবে।

সফটওয়্যার, হার্ডওয়্যার এবং স্টোরেজ

আরএক্স৮ স্মার্টফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে এন্ড্রয়েড ১০ কিউ সংস্করণ এর সাথে। আর এই স্মার্টফোনে এন্ড্রয়েড কিউ এর সকল স্টক সুবিধাই উপভগ করতে পারবেন। যারা স্টক এন্ড্রয়েড লাভার তাদের জন্য এই স্মার্টফোনটির ইউআই প্লাস পয়েন্ট। ওয়ালটন এর আগের প্রিমো আরএক্স ৭ মিনিতে বেশ কয়েকটি ওটিএ আপডেট প্রদান করেছে, এই ফোনটিতেও প্রয়োজনের সাথে সাথে ওয়ালটন সফটওয়্যার আপডেট প্রদান করবে।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেক এর ১২ ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে প্রস্তুতকৃত হেলিও পি২২ চিপসেট। হেলিও পি২২ চিপসেটকে তুলনা করা হয় কুয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৬৩২ চিপসেটের সাথে। আরএক্স৮ এ ব্যবহার করা হেলিও পি২২ একটি ২ গিগাহার্জ বাজস্পিডের অক্টাকোর প্রসেসর! আর স্মার্টফোনটিতে সিপিইউ এর গ্রাফিক্স অংশ হিসেবে থাকছে ‘আইএমজি পাওয়ারভিআর জিই৮৩২০’ জিপিইউ।

স্মার্টফোনটিকে সিস্টেম ব্যকআপ দিবে এতে থাকা ৪ জিবি র‍্যাম। তবে ব্যবহারকারিদের আরএক্স৮ এর স্টোরেজ নিয়ে চিন্তা করতে হবেনা; কেননা আরএক্স৮ ডিভাইসটিতে বিল্টইন হিসেবে পাওয়া যাবে ১২৮ জিবি স্টোরেজ। আর তার থেকেও বেশি যদি লাগে তবে এক্সট্রা মেমরিকার্ড লাগিয়ে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ এক্সটেন্ড করা যাবে। সম্পূর্ণ ডিভাইসকে পাওয়ারআপ করবে একটি ৪০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি।

পরিশেষ


এই ছিল প্রিমো আরএক্স৮ স্মার্টফোন নিয়ে আজকের আলোচনা! আর স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার ব্যবহার করা হয়েছে ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট; পাশাপাশি ফোনটি ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। মূলত এটি ওয়ালটনের ফিচাররিচ সিরিজ আরএক্স এর একদম নতুন সংযোজন। ওয়ালটন ১৫৫৯৯ টাকায় এই স্মার্টফোনটিতে অনেক বেশি ফোকাস করেছে ক্যামেরা, ডিসপ্লে এবং দারুন ডিজাইনে! আপনি যদি এই বাজেটে একটি প্রিমিয়াম লুকিং, স্টোরেজ এবং ভালো ক্যামেরা কোয়ালিটিকে ফোকাস করে থাকেন তবে প্রিমো আরএক্স৮ এর দিকে যেতে পারেন। স্মার্টফোনটিকে বাস্তবে অভিজ্ঞতায় নিতে চলে যেতে পারেন, আপনার পাশের যেকোনো ওয়ালটন স্মার্টজোনে।